ভালোবাসার চাদর

বই > বই মেলা > একুশে বই মেলা ২০১৮
Valobasar Cador (ভালোবাসার চাদর)
ফোনে অর্ডার দিতে কল করুন 01700 769631

ভালোবাসার চাদর

৳230.00
৳161.00
30 % ছাড়

বিয়ের পাত্রী দেখার ক্ষেত্রে সামাজিক রীতি আজকাল এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে, পাত্রের পিতা, ভাই, চাচা, দাদা, খালু, দুলাভাই, কাজিন—এমনকি বন্ধু-বান্ধবদেরকেও নিয়ে যাওয়া হয় পাত্রী দেখতে। এদের অনেকের সাথে হয়তো সেই পাত্রের সাথে বিয়ে হলেও পর্দা ফরজ থাকবে। আর বিয়ের পর যারা মাহ্রাম হবেন তারা তো আর বিয়ের পূর্বেই পাত্রীর মাহ্রাম হয়ে যাননি।
তাই পাত্রের কোনো পুরুষ আত্মীয়ের জন্য পাত্রীকে দেখা মোটেই বৈধ নয়—এমনকি পাত্রের পিতার জন্যও নয়। পুরুষদের মধ্য থেকে শুধু পাত্রই পাত্রীকে দেখতে পারবেন।

আমার এক চিকিৎসক বন্ধু তার নিজ পরিবারের এমন একটি ঘটনা আমাকে জানিয়েছিলেন। তার বড় ভাইকে বিয়ে করাবেন, পাত্রী খোঁজা চলছে। তো বড় ভাইয়ের বিয়ের জন্য মা এক মেয়ের ছবি এনে তাকে দেখতে বলছে। তো সে বললো, মা আমার জন্য পাত্রী দেখছ না কি?
মা বললো, পাজি কোথাকার, তোর ভাইয়ের জন্য; দেখে বল কেমন লাগে। সে বলল, মা, ভাইয়ার জন্য প্রস্তাবিত পাত্রী তো আমি দেখতে পারি না! অগত্যা মা তার ‘ধর্মান্ধ’ ছেলেকে ছেড়ে ছেলের বাবাকে খুঁজছেন—ওগো দেখো তো মেয়েটা কেমন?

এবার ধর্মান্ধ ছেলে বলল, আরে মা, তুমি আমার বাবাকে কেন দেখাচ্ছ? ভাইয়ার সাথে বিয়ে হওয়ার আগ পর্যন্ত সে মেয়ে তো আব্বুরও গায়রে মাহ্‌রাম, চাইলে আব্বু নিজেও তাকে প্রস্তাব দিতে পারে!
আর যায় কোথায়, ডাক্তার ছেলের পিঠেও ধাপুর ধুপুর এক চোট পড়ল।

সঠিক মূল্য

সকল পণ্য তুলনামূলকভাবে বাজারের সমমূল্যে বা এর চেয়ে কম মূল্যে বিক্রয় করা হয়

ডেলিভারী

বাংলাদেশের যে-কোন প্রান্তে ২-৫ দিনের মধ্যে পণ্য পৌঁছে দেয়া হয়

নিরাপদ পেমেন্ট

বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও নিরাপদ পেমেন্ট পদ্ধতি মাধ্যমে পেমেন্টের সুযোগ

২৪/৭ কাস্টমার কেয়ার

সার্বক্ষণিক কেনাকাটার জন্য সার্বক্ষণিক সহায়তা
পণ্যটি সফলভাবে কার্টে যুক্ত হয়েছে     কার্ট দেখুন